হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে উদ্ধার হওয়া ম’দ তার নয় বরং তার ছেলের এবং করোনাকালে তারা ম’দ খায়নি বলেও দাবি করেছেন বহিষ্কৃত আওয়ামী লীগ উপকমিটির সদস্যর কন্যা জেসি আলম। তার দাবি অহে’তুক তার মাকে হয়রানি করা হচ্ছে। তার বাসা থেকে জ’ব্দ হওয়া হরিণের চামড়াটি উপহার হিসেবে পাওয়া। বিদেশি মুদ্রাগুলোও অবৈধ নয়।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিবাগত রাতে গুলশান-২ এর ৩৬ নম্বর রোডের ৫ নম্বর বাসা থেকে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আটকের পর এ দাবি করেন তার মেয়ে। এর আগে, অভিযানে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসা থেকে আমরা বিদেশি মদ, অবৈধ ও’য়াকি’টকি সেট, ক্যা’সিনো সর’ঞ্জাম, বিদেশি মুদ্রা, চা’কু ও হ’রিণের চামড়া জব্দ করে র‍্যাব।

বিদেশি মদ প্রসঙ্গে জেসি আলম বলেন, আমরা মদ খাই না। করো’নাকালে আমরা অ্যা’ল’কো’হল খাইনি। ম’দের কা’লেকশন আমার ভাইয়ের। এগুলো রাখার লাইসেন্সও তার ছিল। সেই লাইসেন্সও তারা (র‍্যাব) নিয়ে গেছে।সাংবাদিকরা হরিণের চামড়ার বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, এটি একটি উপহার।

মায়ের নেত্রীরা আমার ভাইয়ের বিয়ের সময় এটি উপহার দিয়েছিলেন। বিদেশি মুদ্রার বিষয়ে জেসি আলম বলেন, আমরা প্রায় সময়ই বিদেশে যাতায়াত করি। অনেক দেশে আমরা ভ্রমণ করতে যাই। আমাদের সবার পাসপোর্টও আছে। ফিরে আসার পর সেগুলো বেঁচে গেলে আমরা কি ফেলে দেব নাকি?

ক্যাসিনো সরঞ্জাম সম্পর্কে তিনি বলেন, একটা ক্যাসিনো করতে অনেক সরঞ্জাম লাগে যা আমাদের এখানে ছিল না। আমাদের এখানে তাস ছিল যা আমরা বন্ধুদের সঙ্গে খেলতাম। হেলেনা জাহাঙ্গীরকে আট’কের বিষয়ে জেসি আলম বলেন, র‍্যাবের কাছে কোনো ওয়ারেন্ট ছিল না। তারা আমাদের সহযোগিতা করেনি।