রাজ কুন্দ্রাকে নিয়ে আরো ভয়ঙ্কর বিবৃতি দিলেন শার্লিন চোপড়া। কিছুদিন আগে তিনিই প্রথম রাজ কুন্দ্রার বিরুদ্ধে মুখ খোলেন। এমনকি কয়েকদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ার সামনে এসে শার্লিন বিবৃতি দেন,

“আমিই সেই প্রথম ব্যক্তি যে কিনা গত মার্চ মাসে মহারাষ্ট্র সাইবার সেলের ডাকে সাড়া দিই। সমনের জবাব দিতে আমি আমি সাইবার সেলের মুখোমুখি হয়েছি। আমি লুকিয়ে পড়িনি অথবা এমন কথাও বলিনি,

শিল্পা এবং ওর বাচ্চাদের কথা ভেবে আমার মন কাঁদছে”.এবারে আরো বড় অভিযোগ আনলেন শার্লিন। জানা গিয়েছে, চলতি বছরের এপ্রিল মাসে রাজ কুন্দ্রার বিরুদ্ধে FIR দায়ের করেছিলেন তিনি।

সেই সময় শিল্পার স্বামী রাজের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬, ৩৮৪, ৪১৫, ৪২০, ৫০৪, ৫০৬, ৩৫৪ (এ)(বি)(ডি), ৫০৯ ধারার পাশাপাশি Information Technology Act 2008-এর সেকশন ৩ ও

৪-এর অধীনে Indecent Representation of Women Act 1986-এ এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। কিন্তু কেন? আর কি কি বললেন শার্লিন?শার্লিনের কথায়, রাজ শিল্পাকে নিয়ে যৌন জীবনে খুশি ছিলেন না।

শার্লিন তারিখ উল্লেখ করে জানান যে ২৭ মার্চ ২০১৯ মিটিং হয় তাদের দুজনের। এরপর হটাৎ করেই শার্লিনের বাড়িতে হাজির হন রাজ কুন্দ্রা। এবং বাড়ি ঢুকেই শার্লিনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন রাজ। এমনকি জোর করে চুমু খেতে থাকেন রাজ।

এক্ষেত্রে, অ্যাডাল্ট অভিনেত্রী শার্লিনের দাবি, কাজ আর প্লেজার মেশাতে চাই না।এদিন শার্লিন এও বলেন যে রাজ কোনোভাবেই শিল্পাকে নিয়ে যৌন জীবনে খুশি নন। এমনকি রাজ এও জানিয়েছেন যে স্ত্রী শিল্পা শেট্টির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুবই কমপ্লিকেটেড।

শিল্পা সম্পর্কে জটিল কথা বলতে বলতেই শার্লিনের সঙ্গে জোরাজুরি শুরু করেন রাজ। এবং সেদিন অভিনেত্রী কোনোভাবে নিজেকে বাঁচিয়ে বাথরুমের দরজা লক করে দেন।

ভাবছেন শার্লিন এতদিন কেন বলেননি। উল্লেখ্য, শার্লিন রাজ কুন্দ্রার হয়ে কাজ করতেন। কিন্তু, চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি গ্রেফতার করা হয় Umesh Kamat-কে। মধুচক্রের-এর সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে তিনি গ্রেফতার হন এবং

সেই সময়ে এই ব্যক্তি রাজ কুন্দ্রার-র সংস্থায় চাকরি করতেন। মুম্বই পুলিশৈর কথা অনুযায়ী রাজ কুন্দ্রার অফিসে বসেই মোবাইল অ্যাপে মোট ৮টি পর্নোগ্রাফিক ভিডিয়ো আপলোড করেন এই উমেশ কামাত।

এরপরেই অ্যাডাল্ট অভিনেত্রী Gehana Vasisth গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে সমন পাঠানো হয় শার্লিন চোপড়াকে। এরপরেই গোটা ব্যাপার সামনে আসা শুরু করে।