ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যা”চার, অ’পপ্র’চা’র ও বি’ভ্রা’ন্তি’কর তথ্য ছড়িয়ে রা’ষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিদের স’ম্মা’নহানি করার অপচেষ্টার অ’ভি’যোগে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গ্রে’ফতা’র দেখানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে রাজধানীর গু’লশা’ন থেকে তাকে আ’ট’কে’র পর আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) দুপুরে এক ক্ষু’দে বার্তা’য় তাকে গ্রে’ফ’তা’রের তথ্য জানায় র‍্যাব। বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব সদরদফতরের

লিগ্যাল অ্যা’ন্ড মি’ডিয়া উইং পরিচালক কমা’ন্ডার খন্দকার আল মঈন ঢাকা পোস্টকে বলেন, আজ শুক্রবার বিকেল ৪টায় র‍্যাব সদরদফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে। এর আগে আজ দুপুরে এক প্রশ্নের জবাবে কমা’ন্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বি’রু’দ্ধে ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করে মি’থ্যা’চার, অ’পপ্র’চার ও ‘বি’ভ্রান্তি’কর তথ্য ছড়ানোর অ’ভি’যো’গে ডিজিটাল সিকি’উরি’টি আইনে মা’মলা’র প্রস্তুতি চলছে।

এছাড়া মা’দক’, বিদেশি মুদ্রা ও বন্যপ্রাণীর চা’ম’ড়া জ’ব্দে’র ঘটনায় আলাদা আলাদা ‘মাম’লার প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও তথ্য মন্ত্রণালয়ে অনুমোদন ছাড়া জয়যাত্রা নামক টেলিভিশন চ্যানেল পরিচালনার কারণে আলাদা মা’ম’লা হওয়ার কথা রয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাত ৮টার পর হেলেনা জাহাঙ্গীরের গুলশান-২ এর ৩৬ নম্বর রোডের বাসভবনে অ’ভি’যা’ন শুরু করে র‍্যাব। দীর্ঘ চার ঘণ্টা অ’ভি’যা’ন শেষে রাত ১২টার দিকে তাকে আ’ট’ক করা হয় এবং পরে র‍্যাব সদরদফতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার পর হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভি’যান শেষে র‍্যা’বের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বলেন, নির্দিষ্ট অ’ভিযো’গের ভিত্তিতে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় আমরা ‘অভিযা’ন পরিচালনা করেছি। তার বাসায় বিপুল পরিমাণের মাদ’কস’হ বিভিন্ন জিনিসপত্র জ’ব্দ করা হয়েছে। তাকে আমরা আ’ট’ক’ করে বিস্তারিত জিজ্ঞা’সাবাদের জন্য র‍্যাব সদরদফতরে নিয়েছি। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের পোস্টার ভাইরাল হলে আলোচনায় উঠে আসেন হেলেনা জাহাঙ্গীর।

পোস্টারে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হেলেনা জাহাঙ্গীর আর সাধারণ সম্পাদক মাহবুব মনিরের নাম উল্লেখ করা হয়। এরপরই আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য পদ হারান হেলেনা। ২৫ জুলাই দলটির মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সচিব মেহের আফরোজ চুমকি স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রিন্টিং, অ্যামব্রয়ডারি, প্যাকেজিং, স্টিকার এবং ওভেন গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার হিসেবে পরিচিতি রয়েছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের। জয়যাত্রা গ্রুপের আওতায় এসব শিল্প প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তিনি। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক পুরস্কৃতও হয়েছেন রোটারি ক্লাবের একজন ডোনার হিসেবে।

জয়যাত্রা নামে একটি আইপি টেলিভিশনেরও মালিক এই হেলেনা জাহাঙ্গীর। তবে জয়যাত্রা টিভি কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই চলতো বলে জানিয়েছে র‍্যাব। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিবাগত রাতে মিরপুর-১১ নম্বরের এ ব্লকের ৩ নম্বর রোডে জয়যাত্রা টিভি কার্যালয়ে অ’ভি’যান শেষে র‍্যাব সদরদ’ফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাদির শাহ বলেন, মিরপুরে জয়যাত্রা টিভি কার্যালয়ে অ’ভি’যা’ন চালানো হয়েছে। চ্যানে’লটির কোনো বৈধ কাগজপত্র ছিল না। যদিও সম্প্রচারে’র জন্য চ্যানে’লের যে সেট’আপ’ থাকা দরকার, তার সবকিছুই রয়েছে।

তিনি বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীর তার জয়যাত্রা টেলিভিশনের জন্য সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ করেছিলেন। প্রবাসী প্রতিনিধি নিয়োগের নামে তিনি অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন। বৈধ কাগজপত্র না পাওয়ায় তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও এখানে জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনের অফিস পেয়েছি। এ বিষয়েও তদন্ত করা হবে। চ্যানেলটি বন্ধ করে দেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে র‍্যাবের এ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, অধিকতর তদন্ত করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তদন্ত করে যদি বৈধ কাগজপত্র না পাওয়া যায়, তাহলে চ্যা’নেলটি ব’ন্ধ করে দেওয়া হবে।